বোর্ডিং

বাহিরের প্রতিকূল পরিবেশ থেকে হেফাজত করে প্রতিটি শিক্ষার্থীকে চারিত্রিক উৎকর্ষ সাধন এবং আমলের বাস্তব প্রশিক্ষণের জন্য অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলীর ও নাযেমে দারুল ইকামা এর সার্বিক তত্বাবধানে ছাত্রদের আবাসিক থাকার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
উল্লেখ্য: দ্বীন দরদী মুসলমান ভাই/বোনদের আর্থিক সহযোগিতার ভিত্তিতে এসকল কর্মতৎপরতা পরিচালিত হয়।

আবাসিক ছাত্রদের খাওয়া-দাওয়ার সুবিধার জন্য জামিয়ার বোডিং ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পুরুষ শাখায় প্রায় তিনশতাধিক গরীব এতিম ছাত্রদের তিন বেলা ফ্রি খানা ও মহিলা শাখায় প্রায় দুই শতাধিক ছাত্রীদের ফ্রি খানা ব্যবস্থা করা হয়।

একটি বিনীত অনুরোধ
———————
জেনে আনন্দিত হবেন যে, ‘জামিয়া হোসাইনীয়া এরাবিয়া মাদ্রাসাটি’ বাংলাদেশের ময়মনসিংহ বিভাগের জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজিলার প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত একটি সুপ্রাচীন ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে সুদীর্ঘ ৬০ বৎসর যাবৎ দেশ, জাতি ও সর্বস্তরের মুসলিম উম্মাহর হেদায়েত ও কামিয়াবীর লক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রতিষ্ঠানের জমির পরিমান এক একর ৪০ শতাংশ। জামিয়ার বালক-বালিকা ২টি শাখা রয়েছে। উভয় শাখার শিক্ষা কার্যক্রম নূরানী প্লে থেকে দাওরায়ে হাদিস (স্নাতকোত্তর) পর্যন্ত চলমান।
বর্তমানে বালক সাকার ছাত্র সংখ্যা ১৫০০ জন. শিক্ষক সংখ্যা ৫৯ জন ও কর্মচারী ১০ জন।
বালিকা শাখার ছাত্রী সংখ্যা ৬২০ জন. শিক্ষক-শিক্ষিকা ৩৭ জন ও কর্মচারী ৫ জন।
২১২০ জন শিক্ষাথীর মধ্যে ৭৫০ জন শিক্ষার্থী গরীব, এতিম ও অসহায়। লিল্লাহ বোডিং থেকে তাদের তিনবেলা খাবার ব্যবস্থা করা হয়. যার মাসিক খরচ ৭৫০ x ১৫০০ = ১১,২৫,০০০/ (এগারো লক্ষ পঁচিশ হাজার টাকা) এবং বাৎসরিক খরচ ১১,২৫,০০০ x ১২ = ১,৩৫,০০,০০০/ ( এক কোটি পঁয়ত্রিশ লক্ষ টাকা)
পুরুষ শাখার শিক্ষক-কর্মচারীদের মাসিক বেতন ৬,৪৮,০০০ x ১২ = ৭৭,৭৬,০০০/ ( সাতাত্তর লক্ষ সিয়াত্তর হাজার টাকা ) (বাৎসরিক).
মহিলা শাখার শিক্ষক-কর্মচারীদের মাসিক বেতন ১,৭১,০০০ x ১২ = ২০,৫২,০০০/ ( বিশ লক্ষ বায়ান্নো হাজার টাকা ) (বাৎসরিক).

বাৎসরিক মোট খরচ:
লিল্লাহ বোডিং = ১,৩৫,০০,০০০/
পুরুষ শাখা শিক্ষক-কর্মচারী বেতন = ৭৭,৭৬,০০০/
মহিলা শাখা শিক্ষক-কর্মচারী বেতন = ২০,৫২,০০০/
—————————————————————————–
সর্বমোট খরচ = ২,৩৩,২৮,০০০/
(দুই কোটি তেত্রিশ লক্ষ আটাশ হাজার টাকা) যা দ্বীনদার মুসলমানদের সাধারণ দান, যাকাত, ফিৎরা ও মান্নতের টাকা দিয়ে পুরা করা হয়। বর্তমানে অনেক টাকা ঋণ হওয়ায় কর্তৃপক্ষের জন্য এত বিশাল খরচ বহন করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

অতএব, সর্বস্তরের দ্বীন দরদী ভাই-বোনদের নিকট আকুল আবেদন এই যে, জামিয়া এত বিশাল ব্যায় নির্বাহে আর্থিক সাহায্য করে দ্বীনি ইলম প্রসারের কাজে শরিক থাকতে আপনার সুমর্জি কামনা করছি।

নিবেদক

মুফতি শামছুদ্দীন
মুহতামিম, জামিআ হোসাইনিয়া আরাবিয়া
০১৯১৪ ০২৬৬৮১

A Humble Request
——————–
You will be happy to know that ‘Jamia Hossainiya Arabia Madrasa’ is an ancient religious educational institution located in the heart of Melandah Upazila, Jamalpur District, Mymensingh Division, Bangladesh. Founded in 1960, it has been playing an important role in the guidance and success of the Muslim Ummah of the country, the nation and people all walks of life for over 60 years. The amount of land in the organization is .40 acre. Jamia has two branches for boys and girls. Educational activities of both the branches are running from Noorani Play to Daoraye Hadith (Post Graduate).
At present, the number of boys is 1500. The number of teachers is Fifty Nine (59) And Staff is Ten(10).
The number of female students is 620. There are Thirty-Seven (37) teachers and five (5) employees.
Out of 2120 students, 750 are poor, orphaned and helpless. Lillah boding is arranging their three meals from the boarding. Whose monthly cost is 750 x 1500 = 11,25,000 / (eleven lakh twenty five thousand rupees) and annual cost is 11,25,000 x 12 = 1,35,00,000 / (one crore thirty five lakh taka)
Monthly salary of male branch teachers-staff is 6,48,000 x 12 = 77,76,000 / (seventy seven lakh seventy six thousand taka) (annually).
Monthly salary of female branch teachers-staff is 1,71,000 x 12 = 20,52,000 / (twenty lakh fifty two thousand rupees) (annually).

Annual total cost:
Lillah boarding = 1,35,00,000 /
Male Branch Teacher-Employee Salary = 77,76,000 / –
Female Branch Teacher-Staff Salary = 20,52,000 / –
————————————————– –
Total Cost = 2,33,28,000/- (Two crore thirty-three lakh twenty-eight thousand takas).
This total expense is fulfilling with the general donations, zakat, fitra and vows of the devout Muslims. It has become impossible for the authorities to bear such a huge expense as there is a lot of money in debt at present.

Therefore, it is our earnest request to the religious brothers and sisters of all walks of life that I wish you the best of luck in participating in the work of spreading religious knowledge by helping Jamia to meet such huge expenses.

Petitioner
Mufti Shamsuddin
Muhtamim, Jamia Hosseinia Arabia
01914 0261